একজন জান্নাতী মানুষ

হযরত বলেন, ‘অন্যের সম্পর্কে মনকে সাফ রাখা উচিত। একজন সাহাবীর গল্প আছে। একবার হুযুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, একজন জান্নাতী এখন মসজিদে প্রবেশ করবে। কিছুক্ষণ পর একজন মদীনার আনসার সাহাবী এলেন। তার বাম হাতে জুতা, দাড়ি থেকে টপটপ করে পানি পড়ছে। দ্বিতীয় দিন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আবারও একই কথা বললেন, একজন জান্নাতী মানুষ আসবেন। সবাই দেখল ঐ একই মানুষ। তার বাম হাতে জুতা। দাড়ি থেকে টপটপিয়ে পানি পড়ছে। তৃতীয় দিনও ঐরকম হলো।

এরপর আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রাযিয়াল্লাহু আনহু ঐ ব্যাক্তির পিছু নিলেন। তার সঙ্গে তিন দিন থাকলেন। একেবারেই সহজ সরল সাধারণ মানুষ। কোনো বড় নেক আমল নেই। তিনি নিজেও বললেন, ‘আমার কোনো আমল নেই।’ তারপর তিনি যখন চলে আসছেন তখন ঐ আনসার সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহুকে ডেকে বললেন, শোন, একটা কথা বলি, আমার একটা অভ্যাস আছে, কোনো মুসলমান সম্পর্কে আমার মনে কোনো গিট্টু নেই। কোনো মানুষের প্রতি আমার কোনো হিংসা বিদ্বেষ নেই।’ কুরআনের আয়াত হলো,

يَوْمَ لَا يَنْفَعُ مَالٌ وَلَا بَنُوْنَ

إِلَّا مَنْ أَتَى اللهَ بِقَلْبٍ سَلِيْمٍ

যে দিবসে ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি কোনো উপকারে আসবে না; কিন্তু যে পরিশুদ্ধ কলব নিয়ে আল্লাহর কাছে আসবে।

সেদিন কী উপকারে আসবে? সুস্থ সহজ সরল অন্তঃকরণ। কারও সম্পর্কে কোনো বিদ্বেষ নেই, হিংসা নেই। লোভ নেই, লালসা নেই। সবার সম্পর্কে সাফ অন্তর। আল্লাহ তা‘আলা আমাদেরকে এই লক্ষ্যে অগ্রসর হওয়ার তাওফীক দিন।

Facebooktwitterpinterestmailby feather