গায়েবে বিশ্বাস

মানুষের আবিষ্কার, সৃষ্টি ও উন্নতি সবকিছুই তার পঞ্চেন্দ্রিয়’র সাথে সম্পর্কিত। এগুলো দিয়ে আল্লাহর অস্তিত্ব, নবুয়ত, হাশরের দিন, ফেরেশতা, ঐশী গ্রন্থ প্রমাণ করা যাবেনা। এসব বিষয়কে গায়েবের বিষয়বস্তু করা হয়েছে। এ বিষয়ে কুরআনের শুরুতেই বলা হয়েছে,
ٱلَّذِينَ يُؤْمِنُونَ بِٱلْغَيْبِ
‘ যারা বিশ্বাস করে গায়েব’

গায়েবের তরজমা অনেকে অদৃশ্য করে থাকেন। এটা ঠিক নয়। গায়েব মানে এমন কিছু যা স্পর্শ করা যাবে না, দেখা যাবে না, যা (ত্বক দিয়ে) অনুভব করা যাবে না, যার স্বাদ নেওয়া যাবে না । সুতরাং আমাদের পঞ্চেন্দ্রিয় দিয়ে এগুলো আবিষ্কার করা সম্ভব নয়। সকল বৈজ্ঞানিক গেজেট এই পঞ্চেন্দ্রিয়কে সাহায্য করে। আল্লাহর নিকট ফিরে যাওয়ার বিষয়টি পঞ্চেন্দ্রিয়ের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। বিজ্ঞান দিয়ে এটি আবিষ্কার করা সম্ভব নয়। এজন্য পাশ্চাত্যে খুব কম মানুষই এটা বিশ্বাস করে। কিন্তু মুসলমানদের জন্য এটি খুবই পরিচিত একটি বিষয়। প্রতি মুহুর্তে সে এটি তার অন্তরে ধারণ করে; তাকে আল্লাহর নিকট ফিরে যেতে হবে। এমনকি সামান্যতম কোনো অসুবিধা হলেও ইসলাম তাকে বলতে বলে, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন – আমরা আল্লাহর, এবং তার দিকেই আমরা ফিরে যাব।

  • ‘পরিবর্তন ও প্রত্যাবর্তন’, মাক্তাবাতুল ফুরকান – থেকে সংগৃহীত